Sunday , August 19 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর বিভাগ / ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় কাফ্রিখাল ইউপিতে ৫৯ পিস এইটিফাইফ উদ্ধার

ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় কাফ্রিখাল ইউপিতে ৫৯ পিস এইটিফাইফ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ মাদকের ছোবলে জর্জরিত কাফ্রিখাল ইউপি, নিধনের প্রচেষ্টা ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশের। সাম্প্রতিক সময়ে দেখা যাচ্ছে -কাফ্রিখাল ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে নানা ধরনের নেশাজাত দ্রব্য বিক্রি করে আসছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী। যার ফলে ধংস্ব হয়ে যাচ্ছে যুব সমাজ সহ আক্রান্ত হচ্ছে নানা পেশাজীবি মানুষ। আজ ইউপি চেয়ারম্যান ও তার আইন শৃঙ্খলা বাহিনী গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় আনুমানিক রাত ১০.৩০ মিনিটে কাফ্রিখাল ইউনিয়নের কুতুবপুর(গড়) নামক স্থানে দুজন এইটিফাইফ ব্যবসায়ীকে ধরার প্রচেষ্টা কালে তারা ৫৯ পিস এইটিফাইভ এর বোতল ও একটি মোটরসাইকেল রেখে পালিয়ে যায় দুজন অসাধু ব্যবসায়ী । মাদকবিরোধী অভিযানকালে ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সহযোগী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এইটিফাইভ ব্যবসায়ীদের চিহ্নিত করেন। এইটিফাইফ ব্যবসায়ী হলেন-ইউনিয়নের মকরমগ্রামের আসমতউল্লাহ মিয়াজির ছেলে সাখাওয়াত হোসেন(৬০) এবং কাফ্রিখাল গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার ছেলে তাজরুল ইসলাম(৪৫)।এই সময় গ্রাম পুলিশ রিফুল মিয়া বলেন- এইটিফাইভ ব্যবসায়ী মূল হোতা হলো- বালারহাট ইউনিয়নের খোর্দ্দ কোমরপুর গ্রামের( কঞ্চি বাড়ি) সোলেমান মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম(৩৫)। তারা দীর্ঘদিন ধরে এই দুই ইউনিয়নে গাঁজা,ফেন্সিডিল,মদ,এ­ ইটিফাইভসহ নানা ধরনের নেশাজাত দ্রব্য বিক্রি করে আসছে।
তাদেরকে ধরার জন্য দীর্ঘদিন ধরে প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে স্থানীয় প্রশাসন। গ্রামপুলিশ সদস্য রফিকুল ইসলাম,আঃ মান্নান,পুনিল চন্দ্র ও দফাদার আনছার মিয়াসহ যৌথ অভিযানে সার্থকতা অর্জন করেন এবং জব্দ করেন আনুমানিক ৮ হাজার টাকার এইটিফাইভ ও ৭০ হাজার টাকা মূল্যের একটি ফ্রিডম মোটরসাইকেল। ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম বলেন- কাফ্রিখাল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসাবে বলছি আগামী ৬মাসের মধ্যে আমার ইউনিয়ন থেকে গাঁজা,জুয়া ও মাদকসহ নানা ধরণের নেশাজাত দ্রব্য বন্ধের সর্বাত্তক চেষ্টা করে যাবে।তাছাড়া বর্তমানে আমি দায়িত্ব গ্রহণের পর অত্র ইউনিয়নে ৮০ ভাগ গরু চুরি বন্ধ হয়েছে।অত্র ইউনিয়নের ২৭টি মৌজায় গ্রাম পুলিশ সর্তকতার সহিদ কাজ করছে, যাতে কোন অপ্রীতিকর কোন ঘটনা না ঘটে।তাছাড়া ইউনিয়নের যুবক ভাইয়েরা যাতে কোন প্রকার নেশায় আসক্ত না হয় সেই বিষয়ে ইউনিয়নের সকল শিক্ষক- শিক্ষিকাদের কাছে অনুরোধ যাতে কোনভাবে যুবকরা মাদক নামের ঐ নেশায় আসক্ত না হয় সেই বিষয়ে সজাগ করতে অনুরোধ করেছেন।পাশাপাশি যুবকরা যাতে কোন প্রকার নেশায় আসক্ত না হয় সেই বিষয়ে পিতামাতা, সমাজ কিংবা সকল স্তরের মানুষ এগিয়ে আসলে আমাদের ইউপি ১০০ভাগ মাদকমুক্ত হবে। জব্দকৃত ৫৯ পিস এইটিফাইভ ও মটর সাইকেল মিঠাপুকুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম এবং একই সাথে ঘোষনা করেন- সাখাওয়াত ও তাজুলকে যেভাবে হোক গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*