Thursday , October 18 2018
Home / খেলাধুলা / এখনো অনুশোচনায় ভোগেন মুশফিক!

এখনো অনুশোচনায় ভোগেন মুশফিক!

received_308425626168515

স্পোর্টস ডেস্ক

দেশের ক্রিকেটের অন্যতম স্মৃতিবিজরিত কষ্টের মুহুর্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের ১ রানের পরাজয়। শেষ তিন বলে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল মাত্র দুই রান। কিন্তু ৩ বলে ৩টি উইকেট হারায় টাইগাররা।

বাংলাদেশের টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম দুই বলে দুই চার মেরে ম্যাচটি বাংলাদেশের অনুকূলে নিয়ে আসেন। কিন্তু এরপরের বলেই আউট হয়ে শেষ ওভারের উইকেট পতনের সূচনা করেন। কিন্তু এটি নিয়ে পরে আর কখনো মন্তব্য করেননি এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। অবশেষে স্থানীয় গণমাধ্যমের কাছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেই অনুভূতির কথা জানালেন মুশফিক।

২৩ শে মার্চের সেই ম্যাচ হারার পর মুশফিকুর রহিম এই প্রসঙ্গে আর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হননি। যদিও ২৪শে মার্চ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চান। কিন্তু বিষয়টি সেই পর্যন্তই ছিল, এরপর আর কখনো তাকে এই বিষয় নিয়ে কথা বলতে দেখা যায়নি।

কিন্তু অবশেষে তিনি সেই ম্যাচের অনুভূতির কথা সাংবাদিকদের জানান। সোমবার মুশফিকুর রহিম সেই ঘটনাকে তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে খারাপ দিন বলে অভিহিত করে বলেন, ‘আমার ১০-১১ বছরের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে খারাপ দিন ছিল সেটি।’

তারপর থেকে নানাবিধ সমালোচনা সহ্য করতে হয় মুশফিকুর রহিমকে। শট সিলেকশন নিয়েও অনেকে প্রশ্ন করেন। কিন্তু মুশফিকুর রহিম জানালেন অন্য কথা, তিনি এখনো বিশ্বাস করেন তার শট সিলেকশনে কোনো সমস্যা ছিল না কিন্তু সমস্যা ছিল টাইমিংয়ের।

মুশফিক বলেন, ‘বলটি মারার মতোই ছিল কিন্তু আমি ভালো টাইমিং করতে না পারায় সেটি নিচে নেমে যায়। আমি বিশ্বাস করি, আমার শট সিলেকশনে কোনো ভুল ছিল না, দুর্ভাগ্যবশত সেটি সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারিনি।’

এখনো অনুশোচনায় ভোগেন মুশফিকুর রহিম। সেই পরাজয় তাকে এখনো ভাবায়। বলেন, ‘আমি এখনো অনুশোচনায় ভুগি। কেননা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতো আসরে ভারতকে হারানোর এতো কাছে এসেও সুযোগ কাজে লাগাতে পারিনি।’

সেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে দাপটের সাথে খেললেও মূল লড়াইয়ের একটি ম্যাচেও জিততে পারেনি টাইগাররা। চারটি ম্যাচেই পরাজয় নিয়ে দেশে ফিরেন, সবচেয়ে কাছাকাছি গিয়ে হারতে হয় ভারতের সাথে এই ম্যাচে। যেটি দেশের ক্রিকেটার থেকে শুরু করে সবার কাছে এখনো দুঃস্বপ্নের আরেক নাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*