Tuesday , September 25 2018
Home / বাংলাদেশ / ঢাকা বিভাগ / কল্যাণপুরের জঙ্গি সাবেক গভর্নর মোনায়েম খানের নাতি

কল্যাণপুরের জঙ্গি সাবেক গভর্নর মোনায়েম খানের নাতি

received_309433782734366

ঢাকা: ঢাকার কল্যাণপুরে জঙ্গিবিরোধী পুলিশের ‘অপারেশন স্টর্ম ২৬’ অভিযানে যে ৯ জন নিহত হয় তাদের মধ্যে আটজনের পরিচয় সম্পর্কে পুলিশ এখন নিশ্চিত হয়েছে। এদের পরিচয় থেকে দেখা যাচ্ছে এই জঙ্গিরা বিভিন্ন ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে এসেছে। এদের মধ্যে হতদরিদ্র পরিবারের সদস্যও যেমন রয়েছে তেমনি রয়েছে ধণাঢ্য পরিবারের সন্তানও। এই ৮ জনের মধ্যে পুলিশ জানাচ্ছে একজন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর মোনেম খানের নাতি। পুলিশি অভিযানে নিহতদের মধ্যে সবশেষ যে ব্যক্তির পরিচয় বৃহস্পতিবার পুলিশ নিশ্চিত করেছে সে পীরগাছা রংপুরের মহম্মদ রায়হান কবির বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম। পুলিশ বলছে নিহত রায়হান কবির মাদরাসায় পড়ালেখা করেছেন এবং জেএমবির ঢাকা অঞ্চলের কমান্ডার ছিলেন। পুলিশের কাছে তার পরিচয় ছিল তারেক নামে। “এই তারেক গত ডিসেম্বর আশুলিয়ার বারইপাড়া পুলিশ হত্যা মামলার আসামি ছিল।” বিবিসি বাংলার রাবিক হাসনাতকে বলেছেন মনিরুল ইসলাম। “এছাড়াও গুলশান আর্টিসান বেকারি হামলার মামলা তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ দুজন প্রশিক্ষক সম্পর্কে তথ্য পেয়েছে। গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরের একটা চরে তারা ট্রেনিং ক্যাম্প স্থাপন করেছিল। সেখানে সাতজনকে প্রশিক্ষণ দিয়েছিল যে দুই প্রশিক্ষক তাদের একজন ছিল ওই তারেক।” কল্যাণপুরে পুলিশি অভিযানে নিহত অন্যান্যদের বিস্তারিত পরিচয় জানিয়ে মনিরুল ইসলাম বলেন, “এদের মধ্যে তিনজন ছিল নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। একজন নর্থ সাউথ থেকে পাস করে বেরিয়েছে। বাকি দুজন নর্থ সাউথে অধ্যয়নরত ছিল।” “তিনজন হলো মাদরাসা ব্যাকগ্রাউন্ডের। একজন একেবারেই স্বল্পশিক্ষিত –ক্লাস ফোর পর্যন্ত পড়েছে। আরেকজন নোয়াখালি গর্ভমেন্ট কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স দ্বিতীয় বিভাগে পড়াশোনা করত।” জানান মনিরুল। অভিযানে নিহত তালিকার আরেকজন আকিফুজ্জামান খানও ছিল নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ছাত্র এবং তার দাদা ছিলেন মোনায়েম খান, যিনি ছিলেন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর। এর আগে জাতীয় পরিচয়পত্রের সূত্র ধরে সন্দেহভাজন সাত জঙ্গির পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হয় পুলিশ। মনিরুল ইসলাম আজ অষ্টম যে ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ করেছেন সেই রায়হান কবিরের চাচা আব্দুর রউফ বিবিসিকে বলছেন কৃষিজীবী বাবার চার সন্তানের মধ্যে কনিষ্ঠ রায়হান ঢাকায় পোশাক কারখানায় কাজ করত বলেই জানতেন তারা। প্রায়ই একই ধরনের পরিবারের সন্তান দিনাজপুরের আব্দুল্লাহ, যার নাম বুধবারেই প্রকাশ করেছিল পুলিশ। তার ভাই আবুল কালাম আজাদ বিবিসির রাকিব হাসনাতকে জানিয়েছেন তাদের পারিবারিক পেশা মূলত রাজমিস্ত্রি ও কাঠমিস্ত্রি। এভাবেই ভাইয়ের পড়ার খরচ যোগাতেন তারা। যে আকিফুজ্জামান খানকে সাবেক পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর মোনায়েম খানের নাতি বলে উল্লেখ করেছেন পুলিশ কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম, তিনি ঢাকার গুলশানের অধিবাসী। আর যুক্তরাষ্ট্রেই শৈশব কাটিয়ে ঢাকায় এসে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা শেষ করেছেন তাজ উল হক রাশিক। আর ওই একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাজেদ রউফ অর্ক ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। কল্যাণপুরে অভিযানের আগে ঢাকার গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারির ভয়াবহ হামলার ঘটনায় নিহত জঙ্গীদের মধ্যেও ছিল একই সঙ্গে এমন ধনী ও নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তানরা।

#ঢাকা/বাংলাদেশ/জাতীয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*