Wednesday , October 17 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর বিভাগ / কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের নতুন কমিটি নিয়ে বিতর্ক, বিবাহিত আর ছাত্র না হয়েও কমিটিতে বহাল

কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের নতুন কমিটি নিয়ে বিতর্ক, বিবাহিত আর ছাত্র না হয়েও কমিটিতে বহাল

জিএম জয়, বিশেষ প্রতিনিধি:

কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে নানা অভিযোগ উঠেছে। বেশিরভাগ পদের নেতাকর্মী বিবাহিত এবং যাদের ছাত্রত্বও শেষ। এছাড়াও অনেকে অত্র কলেজের শিক্ষার্থী নয়। আর্থিক আর নানাভাবে মেনেজের মাধ্যমে এ কমিটি করা হয়েছে। এমন অভিযোগ খোদ নেতাকর্মীদের।

জানা যায়, গত ৩১ মে রংপুর মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি সফিউর রহমান স্বাধীন ও সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ হোসেন স্বাক্ষরিত একটি অনুমতিপত্রের মাধ্যমে কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। এবং সাইদুজ্জামান সিজারকে সভাপতি ও জামেদ আহমেদকে সাধারণ করে এই পুর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়।

কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী হোমায়রা ইসলাম চাদনী জানান, তিনি গত চার বছর ধরে কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগে নিবেদিত কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছেন। দলে নিজের অবস্থানের জন্য আরো বেশকিছু ছাত্রীকে দলে ভিড়িয়েছেন। এর পাশাপাশি সভাপতি সিজারকে নানাভাবে ম্যানেজও করে আসছেন তিনি। তারপরও নতুন হিসেবে কমিটিতে কোন স্থান হয়নি তার। অন্যদিকে, পুর্নাঙ্গ কমিটির ১৮ টি পদে এমন অনেকে আছেন যারা বিবাহিত। এবং অনেকে ছাত্রত্ব সমাপ্ত করেও নিজেরা পদ পেয়েছেন। এছাড়াও অনেকে পদে আছেন অথচ তিনি কারমাইকেল কলেজের ছাত্রও নন। অার্থিক লেনদেনের মাধ্যমে এ কমিটিতে অনেকে পদ পেয়েছেন।

এ বিষয়ে কমিটির সহ-সভাপতি নুরে আলম আরকে হান্নান বলেন, আমি বর্তমান সভাপতি সিজারকে বলেছি আমার নাম কেটে দেয়ার জন্য। এও বলেছি আমি যুবলীগে যোগদান করবো। এ কমিটিতে আমার নাম থাকলে আমারই সমস্যা হবে। কেন যে আমাকে রাখলো তা বোধগম্য নই।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে সভাপতি সিজারের সাথে কথা হলে, তিনি এ বিষয়ে কোন কিছু বলতে রাজি হননি।

সাধারণ সম্পাদক জাবেদ আহমেদ জানান, এমন অভিযোগ প্রমাণিত হলে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রংপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ হোসেন বলেন, আমাদের কাছে এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ আসনি। আসলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রনি জানান, এর দায়ভার পুরো মহানগর কমিটির। এবিষয়ে তারাই ভাল বলতে পারবে। এবং প্রয়োজনে তারাই ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

তবে নানা বিতর্কের এই কমিটি ভেঙে নতুনদের জায়গা দিয়ে একনিষ্ঠ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*