Monday , June 18 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর বিভাগ / কুড়িগ্রামে দু’জনকে কুপিয়ে সাড়ে ৪ লাখ টাকা ও মোটর সাইকেল ছিনতাই

কুড়িগ্রামে দু’জনকে কুপিয়ে সাড়ে ৪ লাখ টাকা ও মোটর সাইকেল ছিনতাই

সাইফুর রহমান শামীম,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক সংখ্যা লঘু ব্যবসায়ী ও তার বন্ধুর পথ রোধ করে এলোপাথারী কুপিয়ে ৪ লাখ ৪৬ হাজার টাকা ও একটি হোন্ডা মোটর সাইকেল ছিনতাই করে নিয়ে যায় এলাকার কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। এসময় সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুত্বর আহত শ্রী গোলাপ চন্দ্র পাল ও তার বন্ধু জসিমকে উদ্ধার করে উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায় এলাকাবাসী। পরে আহতদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করে দায়িত্বরত চিকিৎসক। আহতরা বর্তমানে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।এ ঘটনায় উলিপুর উপজেলার ধামশ্রেনী এলাকার মোঃ মুনছুর আলী (৩২), ফাসকুরুনি (৩০), মোঃ আবু জাফর সোহেল রানা (৪৫), মোঃ আনোয়ার মিয়া (৩২), মোঃ হাফিজুর রহমান (২৮), মোঃ লিমন মিয়া (২৫), মোঃ রাজিব (৩৫) ও পাঠানপাড়া গ্রামের মোঃ খায়রুল ইসলামসহ অজ্ঞাত আরো কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে গত ২২ এপ্রিল উলিপুর থানায় একটি ছিনতাই হত্যা চেষ্টা মামলা দায়ের করে শ্রী গোপাল চন্দ্র পাল। মামলা দায়েরের পর মামলার ৮নং আসামী মোঃ খায়রুল ইসলামকে গ্রেফতার করলেও বাকী আসামীদের এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে আসামীদের অব্যাহত হুমকীতে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন আহতরা।
অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, গত ২০ এপ্রিল দুপুরে উলিপুর বাজারে মামলার ১ নং আসামী মুনছুর আলীর নিকট দোকানের পাওনা টাকা চাইতে গেলে টাকা না দিয়েই তাকে সংখ্য লঘু বলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এর প্রতিবাদ করতে গেলেই মুনছুর আলী ও তার সহযোগীরা মিলে তাকে মারতে আসে। এসময় উপস্থিত লোকজন তাদেরকে বাঁধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মুনছুর আলী ও তার সহযোগীরা তাকে প্রান নাশের হুমকী দেয়। পরে পাওনা টাকা না নিয়েই ফিরে আসে গোপাল চন্দ্র পাল।
ঐ দিনই বিকেলে বিকেলে গোপাল চন্দ্র পাল তার বন্ধু জসিমকে নিয়ে মোটর সাইকেল যোগে উপজেলার বুড়াবুড়ি ও মন্ডলের হাটসহ বিভিন্ন বাজারে খুচরা ব্যবসায়ীদের নিকট তার দীপা ট্রেডার্স নামক রড, সিমেন্ট ও টিনের দোকানের দেয়া বাকী ৪ লাখ ৪৬ হাজার টাকা আদায় করে রাত পৌনে ৮টার দিকে দুর্গাপুর বাজারে পৌঁছায়। সেখানে মামলার ৩নং আসামী মোঃ আবু জাফর সোহেল রানাকে মোটর সাইকেল নিয়ে অপেক্ষা করতে দেখে। ব্যবসায়ী গোপাল চন্দ্র পাল তার বন্ধুসহ মোটর সাইকেল যোগে উলিপুরের দিকে রওয়ানা দিলে দুর্গাপুর থেকে সোহেল রানা তাদের অনুসরন করে মিনাবাজার নামক এলাকায় তাদেরকে অভারটেক করে চলে যায়। রাত ৮টার দিকে ব্যবসায়ী তার বন্ধুসহ উলিপুর শহরের পোষ্টফিসের কাছে পৌছা মাত্রই সোহেল রানা তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেল দিয়ে তাদের পথ রোধ করে এবং বাকী আসামীরা পরিকল্পনা মাফিক ধারালো ছুরি, ক্রীস, চাইনিজ কুড়াল ও চাপাতি দিয়ে তাদেরকে কোপাতে থাকে। এর এক পর্যায়ে আসামীরা ব্যবসায়ীর কাছে থাকা টাকার ব্যাগ ও ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটি কেড়ে নেয়। এ সময় এলাকার অন্যান্য ব্যবসায়ী ও পথচারীরা এগিয়ে আসলে আসামীরা টাকার ব্যাগ ও মোটর সাইকেল নিয়ে দ্রæত পালিয়ে যায়।
এব্যাপারে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ব্যবসায় শ্রী গোপাল চন্দ্র পাল জানান, আমি সংখ্যা লঘু বলেই আসামীরা তাদের পরিকল্পনা মাফিক আমাকে ও আমার বন্ধুকে হত্যার উদ্দিশ্যে হামলা চালিয়ে টাকা ও মোটর সাইকেল ছিনতাই করেছে। তারা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। মামলা দায়েরে পর তারা বিভিন্ন ভাবে আমাদের প্রান নাশের হুমকী দিয়ে যাচ্ছে। আমি এ ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে সুষ্ঠ বিচার দাবী করছি।
উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্ল্যা আবু সাইদ জানান, উলিপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে। আমরা মামলার ৮নং আসামী খায়রুল ইসলামকে আটক করেছি। বাকী আসামীদেরও আটকের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*