Saturday , August 18 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর বিভাগ / কেন রংপুর সিটির মেয়র হতে চান,সাফিউর রহমান সফি!

কেন রংপুর সিটির মেয়র হতে চান,সাফিউর রহমান সফি!

শাহরিয়ার মিম ও ইসতিয়াক ফারদীস সজীব:
আসন্ন রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হতে চান মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিউর রহমান সফি। এ লক্ষ্যে মহানগরের ৩৩টি ওয়ার্ডে বিভিন্ন সভা, সমাবেশে দেয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানাচ্ছেন। ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। মেয়র নির্বাচিত হলে রংপুর সিটিকে একটি পরিকল্পিত নগরীতে পরিণত করার প্রতিশ্রুতি ভোটারদের কাছে। আওয়ামী লীগের রাজনীতি করার কারণে ১৯৯৪ সালে কারাবরণ করতে হয়েছিল সাফিউর রহমান সফিকে।
অসংখ্যা মামলা মোকাবিলা করেছেন তিনি। পিঠে এখনো রয়েছে পুলিশের পিটুনির চিহ্ন। রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইবেন এবং মেয়র নির্বাচিত হলে কি করবেন? এমন দুটি প্রশ্ন করা হলে সাফিউর রহমান সফি বলেন, আমি রংপুরের সন্তান। জীবনে শুরু থেকেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।ছোটবেলা থেকেই এই নগরের মানুষের সঙ্গে মিশে বড় হয়েছি। বিশেষ করে রংপুর সিটি কর্পোরেশন গঠনের পর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি।
সিটির ৩৩টি ওয়ার্ডের বিভিন্ন উন্নয়ন ও সামাজিক কাজে জড়িয়ে আছি সার্বক্ষণিকভাবে। যেহেতু রংপুর সিটি কর্পোরেশন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা রংপুরবাসীকে উপহার দিয়েছেন। তাই তার দলের একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে মেয়র পদে মনোনয়ন চাইব। সফি বলেন, মেয়র নির্বাচিত হলে রংপুর সিটিকে একটি পরিকল্পিত, সুন্দর, জানজটমুক্ত, পরিচ্ছন্ন শিক্ষা-সংস্কৃতির উর্বর ভূমিতে পরিণত করতে চাই। মেয়র নির্বাচিত হলে সবার আগে নাগরিকদের ওপর চাপানো খাজনা ও ট্যাক্সের বোঝা সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসব। জানজট নিরসনে বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ, আবর্জনা থেকে জৈবসার উৎপাদন করার ব্যবস্থা করব। সর্বোপরি ওয়ার্ডভিত্তিক সুষম উন্নয়ন করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করব।
সাফিউর রহমান সফি কারমাইকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে বিএ অনার্স পাস করার পর ও এমএ পাস করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। সাফিউর রহমান সফি ১৯৬৩ সালের ৮ অক্টোবর সিটি কর্পোরেশনের হারাটি এলাকায় সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ৫ বোন ২ ভাইয়ের মধ্যে তিনি ২য় সন্তান। পিতা-মাতা এখনো বেঁচে আছেন। তার একমাত্র ছেলে ঢাকায় আহসান উল্লাহ ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত।
ছাত্র জীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত সফি ১৯৮১ সালে রংপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের সহ-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৮৩ সালে কারমাইকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৮৩ সালের শেষের দিকে রংপুর জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও জাতীয় পরিষদের সদস্য মনোনীত হন। ১৯৮৪ সাল থেকে ১৯৮৭ সাল পর্যন্ত রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৭ সালের শেষের দিকে রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৪ সালে রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য-জনসংখ্যা ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, ১৯৯৬ সালে শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০৪ সালে জেলা আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হিসেবে মনোনীত হন। ২০১১ সালে রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়ে এখনো দায়িত্ব পালন করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*