Wednesday , September 26 2018
Home / খেলাধুলা / কোহলিদের হারিয়ে আইপিএলের চ্যাম্পিয়ন মুস্তাফিজরা

কোহলিদের হারিয়ে আইপিএলের চ্যাম্পিয়ন মুস্তাফিজরা

fizz
আইপিএলের নবম আসর শুরুর আগের কথা। ধোনির গুজরাট লায়ন্স, কোহলির বেঙ্গালুরু আর গম্ভীরের কলকাতাকে ফেভারিটের তকমা দিতে শুরু করল সবাই।

তখন কেউ অবশ্য সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রে ফেভারিট ভাবেনি। কিন্তু গুটিকয়েক ব্যাটসম্যান আর দুর্ধর্ষ কয়েকজন বোলার।

তাই নিয়েই ফেভারিটদের গুড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে উঠল হায়দরাবাদ। শুধু ফাইনালে উঠেই ক্ষান্ত হয়নি তারা, সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে প্রথম শিরোপা জয়ের স্বাদও দিয়েছে।

রোববার বেঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ডেভিড ওয়ার্নার। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে পাহাড় সমান ২০৮ রান সংগ্রহ করে। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২০০ রানে থামে বেঙ্গালুরু। ফলে ৮ রানের দারুণ এক জয়ে শিরোপা জিতে নেয় হায়দরাবাদ।

রোববার বেঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ডেভিড ওয়ার্নার। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে পাহাড় সমান ২০৮ রান সংগ্রহ করে। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২০০ রানে থামে বেঙ্গালুরু। ফলে ৮ রানের দারুণ এক জয়ে শিরোপা জিতে নেয় হায়দরাবাদ।

রোববার ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৬৩ রান সংগ্রহ করেন শিখর ধাওয়ান ও ডেভিড ওয়ার্নার। এরপর জুভেন্দ্র চাহালের বলে ক্রিস জর্দানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান ধাওয়ান (২৮)। এরপর হেনরিকসকে সঙ্গে নিয়ে দলীয় স্কোরকে ৯৭ রান পর্যন্ত টেনে নেন ওয়ার্নার। হেনরিকস আজ অবশ্য সুবিধা করতে পারেননি। তিনি মাত্র ৪ রান করে আউট হন। তৃতীয় উইকেট জুটিতে যুবরাজের সঙ্গে ২৮ রান তোলেন ওয়ার্নার। এরপর দলীয় ১২৫ রানে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক। যাওয়ার আগে ৩৮ বলে ৮চার ও ৩ ছক্কায় ৬৯ রানের ইনিংস খেলে যান। এরপর যুবরাজ সিংয়ের ৩৮, বেন কাটিংয়ের ১৫ বলে ৩ চার ও ৪ ছক্কায় করা অপরাজিত ৩৯ রানে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২০৮ রান সংগ্রহ করে অরেঞ্জ আর্মিরা।

বল হাতে বেঙ্গালুরুর ক্রিস জর্দান ৩টি উইকেট নেন। শ্রীনাথ অরবিন্দ ২টি উইকেট নেন। একটি নেন চাহাল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*