Thursday , October 18 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর বিভাগ / গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী ও সাদুল্লাপুর উপজেলা থেকে দুটি লাশ উদ্ধার

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী ও সাদুল্লাপুর উপজেলা থেকে দুটি লাশ উদ্ধার

গাইবান্ধা  প্রতিনিধি

 

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের শিশুদহ  বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধেঁর  সুইচগেট এলাকাথেকে হাতপা বাধাঁ অবস্হায় বকুল নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

নিহত ব্যক্তি পরিচয়ে জানা যায় যে,সে দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট থানার শ্যামপুর চককাঠাল গ্রামের নবীউল্লার পুত্র।

পলাশবাড়ী থানার ওসি তদন্ত মোস্তাফিজার রহমান বলেন, আজ সকালে উক্ত এলাকায় লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী  পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্হলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে, সুরাতহাল পরীক্ষা পূর্বক ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়ে দেয়।ঘটনাস্হল পরিদর্শন করেছেন গাইবান্ধা জেলার অতিরিক্ত   পুলিশ সুপার আব্দুল্যা আল ফারুক।

অপরদিকে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়ন অনাথ স্কুল এর নিকটবর্তী গাব গাছের নীচ থেকে ডাকাত সর্দার আয়ুব আলীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

রবিবার (২২ জুলাই) সকালে এলাকাবাসী রাস্তার পার্শ্বে একটি গুলিবিদ্ধ  লাশ পড়ে  থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়।খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অজ্ঞাত  ব্যক্তি হিসাবে লাশ উদ্ধার করে।

সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,নিহতের  গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে সুরাতহাল পরীক্ষাপূর্বক ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা ময়নাতদন্ত কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

নিহতের পরিচয়ে তিনি বলেন,অনেক খুজাখুজির ফলে নিহতের পরিচয় পাওয়া গেছে।

নিহত  আয়ুবআলী পলাশবাড়ী উপজেলার সাতারপাড়া গ্রামের মৃত মমতাজ আলীর পুত্র।

তার নামে সাদুল্লাপুর থানাসহ জেলার বিভিন্ন থানায় ১৪টি খুন ও ডাকাতির মামলা রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এসময় ঘটনাস্থল থেকে কয়েকটি দেশীয় ছোড়া উদ্ধার করা হয়েছে।তবে

ধারণা করা হচ্ছে, ইতিপূর্বে   গাইবান্ধা সদর থানা এলাকার নিজেদের মাঝে  ভবেশ চন্দ্র ও শৈলাস চন্দ্র দুই ডাকাত দলের মধ্য আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যে, খুনের ঘটনা ঘটেছিল তার রেশ ধরে এঘটনা ঘটতে পারে।তদন্তপূর্বক ঘটনার প্রকৃত কারণ সন্পর্কে জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*