Monday , July 23 2018
Home / বাংলাদেশ / চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের রহস্য উদঘাটন, তদন্তে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য!

চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের রহস্য উদঘাটন, তদন্তে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য!

জেলার কোম্পানীগঞ্জে চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। বিবাহ বহির্ভূত অনৈতিক সম্পর্ক (পরকীয়া) দেখে ফেলায় প্রেমিককে দিয়ে নিজের স্বামী ও মেয়েকে হত্যা করানোর চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে তদন্তে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর শাহজালাল উপশহরে সিলেট পিবিআই কার্যালয়ে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান সংস্থাটির এসপি রেজাউল করিম মল্লিক। এ সময় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পরিদর্শক আবুল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

এসপি রেজাউল করিম মল্লিক বলেন, ২০১৬ সালের ৮ আগস্ট কোম্পানীগঞ্জের একটি হাওরে পুটামারা এলাকার আব্দুস সালাম ও তার মেয়ে রুলি বেগমের মরদেহ পাওয়া যায়। এরপর চাঞ্চল্যকর এ জোড়া খুনের মামলার রহস্য উদঘাটনে কাজ শুরু করে পিবিআই।

তিনি বলেন, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে পুলিশ জানতে পারে মামলার বাদী নিহত রুলির মা রুশনা বেগমের সঙ্গে একই এলাকার মখন মিয়ার বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক (পরকীয়া) ছিল। মেয়ে রুলি তা দেখে ফেলায় মেয়েকে হত্যার পরিকল্পনা করেন মা রুশনা বেগম।

এসপি রেজাউল করিম আরও জানান, রুশনার পরিকল্পনা অনুযায়ী গত বছরের ৮ আগস্ট রুশনার মেয়ে রুলি বেগম ও তার স্বামী আব্দুস সালাম নৌকাযোগে বাজার থেকে ফেরার পথে পরকীয়া প্রেমিক মখন ও তার সহযোগীরা টাইয়াপাগলা বড় হাওরে তাদের হত্যা করে।

এ ঘটনায় পিবিআই গত ১০ এপ্রিল মামলার বাদী নিহত রুলি বেগমের মা রুশনা বেগম ও তার প্রেমিক মখন মিয়াকে আটক করে। পরে তারা সিলেটের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (কোম্পানীগঞ্জ) আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে খুনের কথা স্বীকার করে জবানববন্দি দিয়েছে।

শিগগিরিই এ মামলার অভিযোগপত্র দেয়া হবে বলে জানান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পরিদর্শক আবুল হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*