Sunday , July 22 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর বিভাগ / জনগনের সেবা করাই আমার মূল লক্ষ্য : ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মির্জা

জনগনের সেবা করাই আমার মূল লক্ষ্য : ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মির্জা

মো:আহসান হাসান হাবিব(ওয়ার্ড)প্রতিনিধি, রংপুর:
রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ০২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো: গোলাম সরওয়ার মির্জা রংপুর সিটি কর্পোরেশন ০২ নং ওয়ার্ডে বাবার মৃত্যুর পর উপ -নির্বাচনে জয়ী হয়ে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হন।

রংপুরে জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল মাইক্রোনিউজ২৪.কম এ এক সাক্ষাতকারে তিনি জানান, কাউন্সিলর হয়ে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই বর্তমান সময় পর্যন্ত তার ওয়ার্ডে বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ হয়েছে এবং অনেক কাজ চলমান রয়েছে।

ইতোমধ্যেই তিনি তার ওয়ার্ডে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র মহোদয়ের সহযোগিতায় কাঁচা রাস্তা পাকা, সড়ক বাতি স্থাপন, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতা প্রদান, যৌতুক, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং ও মাদকদ্রব্য সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টি, বিভিন্ন সামাজিক সচেতনমূলক এবং উন্নয়নমূলক কাজ করা হয়েছে এবং হচ্ছে। তিনি আরো জানান যে, গরীব ও অসহায় মানুষেরা যখন বিভিন্ন সমস্যা ও বিপদে পড়ে আমার কাছে আসেন তখন আমি নিজস্ব অর্থায়নে সবসময় চেষ্টা করি তাদের সহযোগিতা করার জন্য।

উক্ত উন্নয়ন মূলক কাজের মধ্যে তিনি জানান, চার কোটি নব্বই লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত করা হয়েছে বাওয়াই পাড়ার ব্রেজ। এছাড়া ১৫০ জনকে বয়স্ক ভাতা, ২৫ জনকে প্রতিবন্ধি ভাতা, ১৩ জন বিধবা ভাতা, ৬৬ জনকে মাতৃ ভাতা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ১৫০ জনকে গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে এককালীন বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।

এছাড়াও রসিক মেয়রের সহযোগিতায়, তার নিজ ওয়ার্ডের ৮ কিমি (প্রায়) ৮টি রাস্তার কাজ, ১ টি ৫ কিমি (প্রায়) রাস্তা সংস্কার কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। এছাড়া ১ টি ৬ কিমি (প্রায়) রাস্তার কাজ, ৩ টি ৪.৫ কিমি (প্রায়) রাস্তার পাঁকা করন কাজ চলমান রয়েছে। এছাড়া, ৫ কিমি ( প্রায়) রাস্তায় জনগনের সুবিধার জন্য সড়ক বাতি লাগানো হয়েছে।

তাছাড়া ইএসডিও কর্তৃক ২ টি আনন্দ স্কুল, সিজিপি কর্তৃক ১ টি স্কুল, প্রায় ৩০০ পরিবারের জন্য স্যানেটেশন নির্মান, চিকিৎসা সহ শিক্ষার মান উন্নয়ন জন্য কাজ করেন। এছাড়াও ৪ টি কালভার্ট ২ টি সিসি রাস্তার টেন্ডার হয়েছে।

তাছাড়া তিনি আরও বলেন, আমি আমার ওয়ার্ডে মাদক একদম নির্মূল করার উদ্যাগ গ্রহন করেছি। এবং আগামীতে তার ২ নং ওয়ার্ডে একটি বিএম কলেজ, একটি কেন্দ্রীয় কবরস্থান ও একটি সামাজিক কমিনিউটি সেন্টার তৈরি সহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আগামী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি জবাবে বলেন, মানুষ এখন অনেক সচেতন। মানুষ ভালো-মন্দ বিচার বিবেচনা করতে পারে। তাই আমি আশা করি আগামী নির্বাচনে মানুষ আমার কাজ, দক্ষতা ও মেধা দেখে আমাকে নির্বাচনে জয়ী করবেন, ইনশাআল্লাহ্।

এ বিষয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা হলে তারা বলেন, মির্জা গত কয়েক বছরে অনেক উন্নয়নমূলক কাজ করেছে। আমরা সবাই দোয়া করি মির্জা আবারো নির্বাচনে জয়ী হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*