Wednesday , September 26 2018
Home / বাংলাদেশ / “পুলিশের প্রতি মানুষের ভীতি দূর করতে হবে”

“পুলিশের প্রতি মানুষের ভীতি দূর করতে হবে”

police ig
শাহরিয়ার মিমম;বিশেষ প্রতিনিধি: পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক বলেছেন, পুলিশের প্রতি মানুষের যে ভীতি তা দুর করতে হবে। পুলিশ ও জনগনের মধ্যে যে দুরত্ব কমাতে হবে। কারণ জনগনই হচ্ছে দেশের মালিক। আর আমরা জনগনের সেবক। জনগনকে সাথে নিয়ে আমরা দেশের কল্যানে কাজ করে যাব। এটি হলে মানুষের সঙ্গে পুলিশের সেতু বন্ধন সৃষ্টি হবে। আর এটি সম্ভব কমিউনিটি পুলিশিং এর মাধ্যমে। মঙ্গলবার পুলিশ লাইন্স মাঠে রংপুর কমিউনিটি পুলিশিং-এর বিভাগীয় সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। আইজিপি বলেন, আমরা সেই পুলিশ বাহিনী তৈরী করতে চাই যাতে জনগনের নিকট জবাবদিহিতা থাকবে। বর্তমান পুলিশের বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মাদক এবং জঙ্গীবাদ দমন করা। জঙ্গীবাদের সাথে ইসলামের কোন সম্পর্ক নেই। মানুষকে মেরে ইসলাম কায়েম এটি ধর্ম নয়। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বানচালের জন্য জামায়াত-শিবির স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা পুড়িয়ে গাড়িতে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করেছে। জনগনকে সাথে নিয়ে আমরা সেসব এবং জঙ্গিবাদ মোকাবেলা করেছি। তিনি আরও বলেন, কমিউনিটি পুলিশিং সদস্যদের মূল্যায়ন করতে হবে। কারণ তারা নি:স্বার্থভাবে কাজ করে। যে সব থানায় ওসিরা কমিউনিটি পুলিশিং সদস্যদের মূল্যায়ন করবেনা তাদের থানায় থাকার কোন অধিকার নেই। সেই সাথে থানাকে দালালমুক্ত করতে হবে। দেশের উন্নয়ন করতে হলে জনগনকে সাথে নিয়েই করতে হবে। আইজিপি বলেন, দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আর উন্নয়নের পুর্বশর্ত হলো আইন শৃংখলা বজায় রাখা। আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে রাখতে না পারলে উন্নয়ন সম্ভব নয়। তিনি বলেন, দেশ জাতিকে পঙ্গু করে দেয় মাদক। মাদক প্রসার কমানো যাচ্ছে না। এটা বন্ধ করা কঠিন। পুলিশের একার পক্ষে তা সম্ভব নয়। এজন্য দেশের জনগনকে সচেতন হতে হবে মাদকের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে। তিনি আবারো জোর দিয়ে বলেন রংপুর জাপানি নাগরিক হত্যা মামলায় আসামীদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছেন। খুব দ্রুত এ মামলার চাজশিট দেওয়া হবে। আইজিপি একেএম শহীদুল হক বলেন, ২০০৭ সালে কমিউনিটি পুলিশিং গঠন করা হয়। এরপর পুলিশ সদস্যরা কমিউনিটি পুলিশিং-এর সদস্যদের সাথে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি কমিউনিটি পুলিশিং-এর কমিটিতে খারাপ লোকদের না রাখার আহবান জানান। সমাজে যাদের গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে তাদের এবং নারীদের সম্পুক্ত করার আহবান জানান। রংপুর রেঞ্চের ডিআইজি হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিভাগীয় কমিশনার দিলোয়ার বখত, রংপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. একেএম নুর-উন- নবী, জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার, পুলিশ সুপার আবদুর রাজ্জাক, কমিউনিটি পুলিশিং বিভাগীয় আহবায়ক আব্দুস ছালাম, সদস্য সচিব সুশান্ত ভৌমিক, রংপুর মহানগর কমিউনিটি পুলিশিং-এর সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সদরুল আলম দুলুসহ ৮ জেলার কমিউনিটি পুলিশিং ইউনিটির নেতারা। পরে আইজিপি একেএম শহীদুল হক রংপুরের পুরনো শহর মাহিগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির নতুন ভবনের উদ্বোধন করেন। ফাঁড়ির ইনচার্জ আফাজুল ইসলাম তাকে স্বাগত জানান। এসময় পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা আইজিপির সাথে ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*