Sunday , July 22 2018
Home / বাংলাদেশ / ঢাকা বিভাগ / বনানীতে ফের ধর্ষণ, প্রতিবেদন ২৫ জুলাই

বনানীতে ফের ধর্ষণ, প্রতিবেদন ২৫ জুলাই

রাজধানীর বনানীতে ফের জন্মদিনের অনুষ্ঠানের কথা বলে বাসায় ডেকে তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৫ জুলাই তারিখ ধার্য করেছেন আদালত।
বৃহস্পতিবার মামলার এজাহার আদালতে পৌঁছলে ঢাকা মহানগর হাকিম জাকির হোসেন টিপু তা গ্রহণ করেন। আদালত বনানী থানার এসআই সুলতানা আক্তারকে মামলাটি তদন্ত করে ২৫ জুলাইয়ের মধ্য প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।
মামলার এজাহারে ওই তরুণী উল্লেখ করেছেন, ১১ মাস আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ইভানের সাথ তার বন্ধুত্ব হয়। এর সূত্র ধরেই তাদের দেখা-সাক্ষাৎ হতো এবং ঘোরাঘুরি করতেন।
চার মাস আগে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ঘটনার দিন রাত নয়টায় ইভান ফোন করে ওই তরুণীকে জন্মদিনের কথা বলে তার বাসায় যেতে বলে এবং বলে, তার মায়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবে।
এজাহারে তরুণী উল্লেখ করেন, ‘আমাদের সম্পর্কের বিষয়টি তাহার (ইভান) মাকে জানাবে মর্মে জানায় এবং টেলিফোনে তাহার মায়ের পরিচয় দিয়ে একজন মহিলা আমার সঙ্গে কথা বলে আর আমি তাকে তাহার মা মনে করি। তারপর আমি আমার আপুর সঙ্গে কথা বলে রাত সাড়ে ১০টায় রিকশা করে তাহার বাসার সামনে পৌঁছলে সে আমাকে রিসিভ করিয়া তাহার বাসায় নিয়ে যায়।’
ওই তরুণী বাসায় গিয়ে আর কাউকে দেখেননি। জানতে চাইলে ইভান জানায়, তার বাবা-মা অসুস্থ। তাই ঘুমিয়ে আছেন। জোরে কথা বলা যাবে না।
এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, ‘বাসায় জন্মদিনের অনুষ্ঠানের কোনো আলামত দেখি নাই। আমি ভয় পাই এবং বাসায় আসতে চাই। কিন্তু সে বাসায় আসতে দেয় না। সে আমাকে রাতে খাবার খাওয়ায় এবং নেশাজাতীয় দ্রব্য খাওয়ায়। আমি তাকে নিষেধ করিলে সে একদিন খেলে কিছু হবে না মর্মে জানায়।’
এরপর রাত দেড়টায় ইভান তাকে ধর্ষণ করে বলে তরুণী এজাহারে উল্লেখ করেছেন। তিনি আরো বলেন, ‘আমি চিৎকার করিতে থাকিলে সে রাত সাড়ে তিনটায় আমার ব্যাগ রেখে আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।’
তরুণীর ভাষ্য, ‘ব্যাগে তিনটা ড্রেস- ২টা জিনস, একটা কুর্তা, ৩টি মোবাইল, চার্জার, সিম কার্ড, মেমোরি কার্ড ও নগদ ১৫ হাজার টাকা ছিল।’
বাসা থেকে রাতে বের করে দেওয়ার পর পথচারী ভদ্রলোকের সহায়তায় তিনি থানায় আসেন বলেও উল্লেখ করেন।
এজাহারে তরুণী আরো বলেন, ‘আসামি আমাকে এর আগেও বিবাহের প্রলোভনে ধর্ষণ করে। আমাকে ভয় দেখায়, মুখ খুলিলে তাহার নিকট আছে এমন খারাপ ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিবে।’
কিছুটা সুস্থ হয়ে এবং আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে কথা বলে এজাহার দিতে দেরি হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন উত্তরাঞ্চলের এই তরুণী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*