Wednesday , September 26 2018
Home / অর্থনীতি / রংপুরের গঙ্গাচড়ায় অবৈধ বিদ্যুত্ লাইন সংযোগের অভিযোগ!

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় অবৈধ বিদ্যুত্ লাইন সংযোগের অভিযোগ!

গঙ্গাচড়া (রংপুর) সংবাদদাতা
পল্লী বিদ্যুত্ সমিতি-২ এর আওতায় গঙ্গাচড়া জোনাল অফিসে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই অবৈধ বিদ্যুত্ লাইন সংযোগের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কতিপয় কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সহায়তায় একটি অসাধু চক্র নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করেই উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে অবৈধভাবে বৈদ্যুতিক খুঁটি ও তার সংযোগ দিয়ে মিটার সরবরাহ করছে। এতে সরকার তথা পল্ল­ী বিদ্যুত্ সমিতি আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। জানা যায়, উপজেলার মর্নেয়া ইউনিয়নের ছোটরুপাই হাজী মহসিনের মিলের পাড় এলাকায় তিনটি খুঁটি দিয়ে তার সংযোগ দিয়ে মিটার লাগানো হয়েছে।গজঘণ্টা ইউনিয়নের ওমর গ্রামে একটি খুঁটি দিয়ে তার সংযোগ দেওয়া হয়েছে। মিটার দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। অবৈধ এসব সংযোগের ব্যাপারে অফিসে কোনো তথ্য নেই। তা ছাড়া হাবু, জয়দেব, গজঘণ্টা এলাকায়ও অবৈধ সংযোগ দেওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। একেকজন গ্রাহক আট হাজার টাকায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। এলাকার শফিকুল ইসলাম বলেন, তিনি সুদের উপর ছয় হাজার টাকা নিয়ে দিয়েছেন। সেখানে ২৩টি মিটার সংযোগ দেওয়ার কথা রয়েছে।সংশ্লি­ষ্ট সূত্রে জানা যায়, কোনো গ্রাহক একটি বৈদ্যুতিক খুঁটি কিনতে চাইলে তাকে আবেদনসহ দেড় হাজার টাকা জমা দিতে হয়। তারপর বিষয়টি কর্তৃপক্ষ সরেজমিন তদন্তপূর্বক নির্দিষ্ট ফি ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা  ফি জমাদানপূর্বক ঠিকাদারের মাধ্যমে বৈদ্যুতিক খুঁটি সরবরাহ করে থাকে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু নিয়ম-নীতির  তোয়াক্কা না করে খুঁটির মূল্য জমা না দিয়ে অবৈধভাবে খুঁটি, তার ও মিটার সরবরাহ করা হয়েছে। গঙ্গাচড়া জোনাল অফিসের ইঞ্জিনিয়ার সাখাওয়াত হোসেন বলেন, আমার জানামতে এসব লাইন অবৈধ। কোনো প্রমাণ নেই। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। একটি চক্র এসব কাজ করছে বলে তিনি বলেন।  লিখিত অভিযোগ পেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।রংপুর পল্ল­ী বিদ্যুত্ সমিতি-২ গঙ্গাচড়া জোনাল অফিসের ডিজিএম অখিল কুমার সাহা বলেন, লাইন সংযোগের বিষয়ে আমার জানা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*