Monday , August 20 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর বিভাগ / রংপুরে সিটি নির্বাচনকে টার্গেট করে বিএনপির ৬৬ হাজার সদস্য সংগ্রহের টার্গেট

রংপুরে সিটি নির্বাচনকে টার্গেট করে বিএনপির ৬৬ হাজার সদস্য সংগ্রহের টার্গেট

রংপুর অফিস:
রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভালো ফলাফলের টার্গেট নিয়ে মহানগরীতে বিএনপির সদস্য সংগ্রহ অভিযানের জোর প্রস্তুতি চলছে। এ জন্য ৬৬ হাজার সদস্য সংগ্রহের টার্গেট করেছে দলটি। আগামী সপ্তাহের যেকোনো দিন আনুষ্ঠানিকভাবে সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি সমাপ্ত করা হচ্ছে। সদস্য সংগ্রহ অভিযানকালে সরকারের ব্যর্থতা এবং বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দমন,পীড়ন, হামলা, মামলার খতিয়ানও জনগণের কাছে উপস্থাপন করবে দলটি। মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজু গতকাল নয়া দিগন্তকে এ তথ্য জানিয়েছেন।
রংপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ঐতিহ্যবাহী কারমাইকেল কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস শহিদুল ইসলাম মিজু জানান,
রংপুরের আপামর জনসাধারণের সাথে বিএনপির নেতাকর্মীদের এখন হৃদয়ের সম্পর্ক। এই সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় করতে তারা চায় রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করুক। আর তাই জনমানুষের আকাক্সাকে বাস্তবে রূপ দিতে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে আমরা গুরুত্বসহ দেখছি। আর চলমান সদস্য সংগ্রহ অভিযানকে সেজন্য থিংট্যাংক হিসেবে কাজে লাগাতে চাই আমরা।
স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের সময় রংপুরে সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্যের অন্যতম এই যুগ্ম আহ্বায়ক মিজু আরো বলেন, আমরা টার্গেট নিয়েছি সিটি করপোরেশনের ৩৩ ওয়ার্ড থেকে দুই হাজার করে ন্যূনতম ৬৬ হাজার সদস্য সংগ্রহ করব। একই সাথে তাদের বিএনপির প্রার্থীকে ভোট দেয়ার জন্য উজ্জীবিত করব। এ জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি আমরা নিয়েছি। সদস্য সংগ্রহকালীন সময়ে আমরা সারা দেশ, বিশেষ করে রংপুরের মানুষের কী ধরনের দুর্ভোগ, রংপুরে বিএনপি ও বিরোধী মতের ওপর সরকারের জুলুম নির্যাতনের খতিয়ান এবং রংপুরের উন্নয়নে আমরা কী করতে চাই তার একটা রূপরেখা তুলে ধরব ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে। এ জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট তৈরির কাজ আমাদের চলছে। আগামী সপ্তাহের যেকোনো দিন আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে এই সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করব।
জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাবেক রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম আরো বলেন, বর্তমান সরকার অবৈধ সরকার। জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার নয়। তার রাষ্ট্রীয় যন্ত্রকে ব্যবহার করে দেশের মানুষ এবং বিএনপিসহ বিরোধী মতের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, মামলা, জুলুম, নির্যাতন চালিয়ে তাদের দমন করার অপচেষ্টায় লিপ্ত। দেশের সব শ্রেণী পেশার মানুষ মহাদুর্ভোগের মধ্যে আছে। এই সরকারের অবসান ছাড়া দেশের মানুষের দুর্ভোগ কমবে না। সে কারণে দেশের মানুষকে দুর্ভোগের হাত থেকে রক্ষা করতেই বিএনপি চেয়ারপারসন সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের কথা বলছেন। সেই নির্বাচন আদায় করতে বিএনপি খুব শিগগিরই সারা দেশে আন্দোলনের মাঠে নামবে। এখন মানুষ বেরিয়ে এসেছে। এবার আন্দোলন ব্যর্থ হওয়ার কোনো কারণ নেই। জনগণই আন্দোলন সফল করে তাদের দুর্ভোগ লাঘব করবে। বিএনপির নেতাকর্মীরা সেই আন্দোলনে নাবিকের ভূমিকা পালন করবে। সরকার পতনের আন্দোলনের তীব্র ঘণ্টাধ্বনি রংপুর মহানগরী থেকেই বাজানো হবে।
রংপুর শহর, জেলা ও মহানগর বিএনপির বিভিন্নপর্যায়ে নেতৃত্বদানকারী বর্তমান রংপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজু আরো জানান, এই সরকার মিথ্যার ওপর ভর করে প্রশাসনের আশীর্বাদে টিকে আছে। বিএনপির বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রপাগান্ডা চালিয়ে নিজেদের মাকাল ফলের মতো টিকিয়ে রেখেছে। তাদের নেতাকর্মীরা নিজেদের ধরাছোঁয়ার বাইরের মানুষ ভাবছে। কিন্তু তারা জনগণের আসল রূপ দেখেও না দেখার ভান করছে। বিএনপির নেতৃত্বে গণজোয়ারের মাধ্যমে এই অবৈধ সরকারের পতন ঘটানো হবে। রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিজয়ের মধ্য দিয়ে সেই যাত্রা রংপুর থেকে শুরু করতে আমরা মহানগরীর প্রত্যেক বাড়ি বাড়ি নেতাকর্মীদের ছুটে যাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিয়েছি।
[খবর: সংগ্রহকৃত]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*