Sunday , July 22 2018
Home / বাংলাদেশ / রংপুর সিটি নির্বাচন: ৬৬ ভাগ ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ

রংপুর সিটি নির্বাচন: ৬৬ ভাগ ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ

স্টাফ রিপোর্ট:
রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৬৬ ভাগ ভোটকেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ। এসব কেন্দ্রের বেশিরভাগ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে যুক্ত হওয়া নতুন এলাকায়। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোর প্রতিটির দায়িত্বে থাকবেন ২৪ জন অস্ত্রধারী নিরাপত্তাকর্মী। এ ছাড়া নির্বাচন সামনে রেখে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।

রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা সুভাষ চন্দ্র সরকার জানান, সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৩৩ ওয়ার্ডের ১৯৩টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হবে। এর মধ্যে ১২৮টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। এসব কেন্দ্রে আর্মড পুলিশ, পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব ও আনসার মোতায়েন করা হবে। এ ছাড়া ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে এসব কেন্দ্র আলাদা নজরদারিতে রাখা হবে। যেহেতু রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন অন্যান্য সিটির মধ্যে প্রথম নির্বাচন, তাই সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব নিশ্চিত করবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

তিনি জানান, এরই মধ্যে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান শুরু করেছে। নির্বাচনী এলাকার গুরুত্ব অনুসারে বিভিন্ন জোনে ভাগ করে নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনে নিজস্ব পুলিশ ছাড়াও বাইরের জেলা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ আনা হচ্ছে। সদর দপ্তর থেকে যে কেন্দ্রগুলো দূরে এবং যাতায়াত ব্যবস্থা ভালো নয়, যে কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা বেশি, কেন্দ্রের আশপাশে প্রার্থীর বাড়ি, আগের নির্বাচনে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে, একই কেন্দ্রে দুই এলাকার ভোটার রয়েছে- এমন কেন্দ্রগুলোকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এ ছাড়া ভোটের তিন দিন আগে থেকে বাসস্ট্যান্ড, আবাসিক হোটেল, রেলস্টেশনসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টে ১২৮টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এসব কেন্দ্রের প্রতিটিতে নিরাপত্তার দায়িত্বে আর্মড পুলিশ, পুলিশ, আনসার, র‌্যাব, বিজিবিসহ ২৪ জন সশস্ত্র নিরাপত্তাকর্মী দায়িত্ব পালন করবেন। অন্য কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন ২২ জন করে নিরাপত্তাকর্মী। এ ছাড়া ৩৩টি ওয়ার্ডে ৩৩ জন ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন। ২১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য রংপুর সিটি নির্বাচন সামনে রেখে বিভিন্ন এলাকার অস্ত্রধারী, সন্ত্রাসী ও বখাটের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তাদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু হয়েছে। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সম্ভাব্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*