Thursday , September 20 2018
Home / বাংলাদেশ / খুলনা বিভাগ / সুন্দরবনে র‌্যাবের অভিযানে তিন ‘জলদস্যু’ আটক

সুন্দরবনে র‌্যাবের অভিযানে তিন ‘জলদস্যু’ আটক

সুন্দরবনের বড় কেয়াখালী খাল সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ‘জলদস্যু’ নূর ইসলাম বাহিনীর তিন সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৮।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় এ অভিযান চালানো হয়। এসময় বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত জলদস্যুরা হলেন নূর ইসলাম বাহিনীর সক্রিয় সদস্য আবু ইছা ওরফে আশিক (২৮), আব্দুল কাদের (৩৫) ও নাজমুল শেখ (২৭)। তারা সাতক্ষীরার শ্যামনগর থানার শরা ও ট্যাংরাখালী এবং মংলা থানার বাগেরহাটের জয়মনি গ্রামের বাসিন্দা।

র‌্যাব-৮ এর সদর দপ্তর থেকে প্রেরিত মেইল বার্তা সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা জলদস্যু নূর ইসলাম বাহিনীর সম্ভাব্য আস্তানা শনাক্ত করে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে র‌্যাবের একটি বিশেষ টিম ওই দিন মালঞ্চ নদী ধরে গোয়েন্দা দ্বারা চিহ্নিত এলাকার দিকে অগ্রসর হতে থাকে। দুপুর বেলা ১২টার দিকে বড় কেয়াখালী খাল নামক স্থানের কাছাকাছি পৌঁছালে বাইনোকুলারের সাহায্যে নিবিড়ভাবে চারপাশ পর্যবেক্ষণ করে বনের ভেতর কয়েকজন লোককে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়।

এক পর্যায় র‌্যাব সদস্যরা কৌশল অবলম্বন করে জলদস্যুদের কাছাকাছি পৌঁছালে সন্দেহভাজন দস্যুরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দৌড়ে পালিয়ে যেতে দেখে র‌্যাবের আভিযানিক দল তাদেরকে ধাওয়া করে অস্ত্র ও গুলিসহ তিনজনকে আটক করে।
পরে ঘটনাস্থলে ব্যাপক তল্লাশি করে একটি বিদেশি একনালা বন্দুক, একটি বিদেশি দোনালা বন্দুক, একটি ওয়ান শুটারগান, একটি পয়েন্ট ২২ এয়ার রাইফেল, বিভিন্ন অস্ত্রের ৮২ রাউন্ড গুলি ও জলদস্যুদের ব্যবহৃত বিভিন্ন দ্রব্যসামগ্রী উদ্ধার করা হয়।

আটকৃতদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ মে ২০১৬ থেকে ২৯ এপ্রিল ২০১৭ পর্যন্ত (১১ মাসে) ১২টি বাহিনীর ১৩২ জন জলদস্যু ২৪৭টি অস্ত্র ও ১২ হাজার ৪৯০ রাউন্ড গোলাবারুদসহ র‌্যাব-৮ এর কাছে আত্মসমর্পণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*