Wednesday , October 17 2018
Home / বাংলাদেশ / ৭ পৌরসভার ১২ কেন্দ্রে ভোট স্থগিত

৭ পৌরসভার ১২ কেন্দ্রে ভোট স্থগিত

অনিয়ম, সংঘর্ষ, পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, ভোটকেন্দ্রে গুলি, ব্যালট পেপারে জোর করে সিল দেওয়ার অভিযোগে সাতটি পৌরসভার ১২টি কেন্দ্রের ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং ও প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা এসব কেন্দ্রে ভোট নেওয়া স্থগিত করেন।

এর মধ্যে কুমিল্লার বরুড়া পৌরসভায় একটি, চট্টগ্রামের চন্দনাইশ ও বাঁশখালী পৌরসভায় তিনটি, মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভায় দুটি, জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে একটি, বরগুনায় একটি, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের চৌমুহনী পৌরসভায় চারটি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত হয়েছে।
আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক, আঞ্চলিক কার্যালয় ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

কুমিল্লা: রাতে ব্যালট পেপারে সিল মারার অভিযোগে কুমিল্লার বরুড়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক শিলমুরি উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ ভোটকেন্দ্রে আজ বুধবার ভোট শুরু হওয়ার আগেই ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে।
রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বরুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লুৎফুন নাহার নাজিম এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, যেহেতু ব্যালট পেপারে সিল মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে, তাই কেন্দ্রটিতে ভোট শুরুর আগেই ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের চন্দনাইশ ও বাঁশখালী পৌরসভায় কেন্দ্র দখল ও অনিয়মের অভিযোগে তিনটি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে। এর মধ্যে চন্দনাইশে দুটি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়। জেলা প্রশাসক বলছেন, কয়েকজন ‘দুষ্কৃতকারী’ এ কাজ করেছে। আজ বুধবার সকালে আসলাতুন চৌধুরী ফোরকানিয়া মাদ্রাসা ও গাছবাড়িয়া এএনজে উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্র দুটিতে ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়। আটটায় ভোট শুরুর আগেই কেন্দ্র দুটি দখল করার অভিযোগ ওঠে।

বাঁশখালীর উত্তর জলদি রুহুল্লাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী সেলিমুল হক চৌধুরী ও বিএনপির মেয়রপ্রার্থী মো. কামরুল ইসলাম হোসেনের সমর্থকদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, সংঘর্ষ ও গুলি বিনিময়ের পর ভোট স্থগিত করা হয়। কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা তুষার কান্তি বারতি তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

মাদারীপুর: কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট পেপারে নৌকা প্রতীকে সিল মারার অভিযোগে মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার দুটি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে। কেন্দ্র দুটি হলো-জনারধন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কাষ্টঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।
জনারধন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রটি আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী এনায়েত হোসেনের বাড়ির কাছে। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে তাঁর নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত কেন্দ্রে ঢুকে নৌকা প্রতীকে সিল মেরে ব্যালটবাক্সে ঢোকায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জনারধন্দির পাশে অবস্থিত কাষ্টঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রেও কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা শাকিরুল রহমানের নেতৃত্বে নৌকায় সিল মারা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। প্রায় ৮০০ ব্যালটে সিল মারা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
মাদারীপুরের জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও কালকিনি পৌরসভার রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন বলেন, অভিযোগ পেয়ে দুটি কেন্দ্রেই ভোট স্থগিত করা হয়েছে। সকাল আটটা থেকে বাকি সাতটি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া শুরু হয়েছে। ওই দুই কেন্দ্রে পরে ভোট নেওয়া হবে।

জামালপুর: জামালপুরের সরিষাবাড়ীর বাঙালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে। ভোট নেওয়ার সময় সহিংসতা হলে ওই কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করা হয়।

বরগুনা: বরগুনা পৌরসভায় সকাল সাড়ে নয়টার দিকে গগন মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রটিতে ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে। রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবদুল্লাহ প্রথম আলোকে জানান, ভোট নেওয়া শুরু হওয়ার পর থেকে কামরুল আহসানের সমর্থকেরা কেন্দ্র দখল করে সিল মারতে শুরু করেন। এ সময় অন্য প্রার্থীর সমর্থকেরা বাধা দিলে গোলযোগ শুরু হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষ শুরু হয়। এরপর ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।

নোয়াখালী: ব্যালটপেপারে নৌকা প্রতীকে সিল মারার অভিযোগে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে চৌমুহনী পৌরসভার চারটি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির কারণে আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উত্তর নাজিরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উত্তর নাজিরপুর নূরানী মাদ্রাসা, উত্তর হাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সংশ্লিষ্ট প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা ভোট নেওয়া স্থগিত করেন।
এর আগে বেলা পৌনে ১১টার দিকে বেগমগঞ্জ সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচনী কর্মকর্তা মো. মনির হোসেন তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*