Monday , June 18 2018

জালাল উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধি :

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের শ্রীরামপুর গ্রামে মাঠে ছাগল বাধঁতে গিয়ে  ধর্ষণের শিকার  হলো এক কিশোরী।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে  উদ্ধার করে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে  ভর্তি করা হয়েছে।হাসপাতালে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ঘটনায় ধর্ষীতার  দাদি বাদী হয়ে বুধবার রাত্রি ১০ টায় অভিযুক্ত যুবকের বিরুদ্ধে সাদুল্লাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছে।

ধর্ষণের শিকার কিশোরী ও তার পরিবারের অভিযোগ, বুধবার বেলা ১১টার দিকে  কিশোরীটি বাড়ির অদূরে নদীর পার্শ্বের মাঠে ছাগল বাঁধতে যায়। 

এসময় নদীর ধারে আাগে থেকেই ওঁৎ পেতে থাকা একই গ্রামের সুজন মিয়া মেয়েটির পেছন দিক থেকে ওড়না টেনে খুলে নিয়ে তার মুখ চেপে ধরে,আখ ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে।

মেয়েটির  আত্ম চিৎকারে  এলাকাবাসী এগিয়ে এলে অভিযুক্ত যুবক পালিয়ে যায়।এসময় এলাকাবাসী  কিশোরীটিকে উদ্ধার করে  বাড়িতে নিয়ে আসলে তার শরীর থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকে ।

এমতাবস্থায় আশংকাজনক অবস্থায় কিশোরীকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

কিশোরীটির শরীর থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ায় তার সার্বিক অবস্থা আশঙ্কামুক্ত নয় বলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায়।

অভিযুক্ত ধর্ষক সুজন নলডাঙ্গা ইউনিয়নের শ্রীরামপুর গ্রামের  আজম আকন্দের পুত্র।

সাদুল্ল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বোরহান উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,

কিশোরীকে উদ্ধার করে  আশংকাজনক অবস্থায় গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এ ঘটনায় কিশোরীটির দাদি বাদী হয়ে সুজনকে আসামি করে বুধবার দিবাগত রাত্রি ১০ টায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে থানায়  মামলা দায়ের করেছে।

অভিযুক্ত আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*